মেয়েরা পর্দা করে আজ ফ্যাশন হিসেবে।

10345759_564133710372267_4172287804470458331_nটাইট ফিটিং বোরখা, জিন্সের টাইট প্যান্ট, মুখে এক গাদা ময়দা (মেকআপ), ঠোঁটে এত্তগুলো জেল কালি (লিপিস্টিক) লাগিয়ে মাথায় একটা তিন কোনা ত্যানা (স্কার্ফ) প্যাঁচালেই হিজাব হয় না।যদি পারেন তাহলে ফ্যাশন না করে শালীনভাবে হিজাব করার চেষ্টা করুন। আপনার কারণে যাতে প্রকৃত হিজাবী মেয়েকে এরকম কথা শুনতে না হয় যেঃ “হিজাবী মেয়েদের মাঝে যত্তসব বেজাল” “বোরখার ভেতরেই সব শয়তান”
ইত্যাদি ইত্যাদি। মনে রাখবেন হিজাব ফ্যাশন করার কোন বস্তু নয়। এটা আল্লাহর একটি ফরয বিধান। ফ্যাশন করার জন্যে মাথায় একটা কাপড় বাঁধবেন না। কেননা এতে প্রকৃত হিজাবের অপমান হয়। আর ফেইসবুকের কথা কি আর বলবো? কত ইসলামিক সেলিব্রেটি মার্কা লেখিকা হিজাব করে ফেসবুকে ছবি আপলোড দিয়ে রেখেছেন। আর আ’ম পাবলিক হাজার লাইক দিচ্ছে, কত চুন্দর চুন্দর কমেন্ট করছেঃ চো নাইচ, বিউতিপুল, ডারুন, চুপার, কুব চুন্দর, ইত্যাদি ইত্যাদি। আরে ওহে চেলিব্রেতি আপু শুনে রাখুনঃ ইসবুকে বেপর্দা মেয়েদের দ্বারা কখনো হিজাবের অপমান হয় না। কিন্তু আপনাদের মত নামধারী জাবীদের দ্বারা হিজাবের অপমান হয়। হিজাব করার ফরয বিধানটি কৌতুকে পরিণত হয়। খোদায়ী একটি ফরয ধানের মর্যাদা ক্ষুন্ন হয়। একমাত্র আপনার কারণে। হ্যাঁ, হ্যাঁ, হ্যাঁ, একমাত্র আপনারই কারণে।

এই বিভাগের আরো পোষ্ট সমূহ

Share
Updated: March 3, 2015 — 8:34 pm

আমাদের পোষ্টগুলো ফলো এবং শেয়ার করতে ক্লিক করুন

1 Comment

Add a Comment
  1. ঠিক বলেছেন…….

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

অনুসন্ধান ডটকম © 2016